ঢাকা ও আইসি ইয়ুথ ক্যাপিটাল ২০২০’র চাবি গ্রহণ করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: 3:24 PM, January 17, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ (১৬ জানুয়ারি) কাতারের দোহাতে অনুষ্ঠিত এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে Dhaka OIC Youth Capital 2020 এর চাবি গ্রহণ করেছেন মাননীয় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জনাব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এম পি।

তিনি কাতারের সংস্কৃতি ও ক্রীড়া মন্ত্রী জনাব সালাহ বিন গানামের নিকট হতে Doha OIC Youth Capital 2019 এর সমাপনী অনুষ্ঠানে এ চাবি গ্রহণ করেন। এ সময়ে ICYF এর প্রেসিডেন্ট তাহা আইয়ান উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাকে ২০২০ সালের জন্যে OIC Youth Capital নির্বাচিত করায় প্রতিমন্ত্রী OIC ও IYCF কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এ বছর  বাংলাদেশ বনার্ঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ সাড়ম্বরে উদযাপন করছে। মুজিব বর্ষ উদযাপনের পাশাপাশি OIC Youth Capital উদযাপন আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের গর্বের। আমি OIC ও IYCF কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই ঢাকাকে সমর্থন দেবার জন্য। আমরা মুজিব বর্ষ ও OIC youth capital উপলক্ষে বিস্তৃত কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। আমি OIC ভুক্ত সদস্য রাষ্ট্রসহ বিশ্বের সকল দেশকে মুজিব বর্ষ ও OIC Youth Capital এর সকল কার্যক্রমে অংশগ্রহণের উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, মুজিব বর্ষে আমরা ১০০ টি ইভেন্ট আয়োজন করছি যার মধ্যে ৪৪ টি আন্তর্জাতিক  ইভেন্ট। OIC Youth Capital উপলক্ষে আমরা জমকালো উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠানসহ ১০ টি ইভেন্ট আয়োজন করব।

OIC কে মুসলিম বিশ্বের একটি আদর্শ প্লাটফর্ম উল্লেখ করে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালে যোগদান করে এবং যোগদানের অব্যবহিত পর থেকেই OIC ভুক্ত  সকল রাষ্ট্রের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রেখে আসছে।

তিনি বলেন,  বাংলাদেশে প্রায় দশ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী আশ্রয় নিয়েছে। এই  বিশাল জনগোষ্ঠীকে তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রর্ত্যাবাসন জরুরি।  এ বিষয়ে আমরা OIC এর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী কাতারকে বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, কাতার আমাদের ভালো বন্ধু।  প্রায় চার লাখ বাংলাদেশী অবস্থান করছে এবং তারা উভয় দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কাজ করছে। সাম্প্রতিক সময়ে শিক্ষা স্বাস্থ্য সংস্কৃতি ও ক্রীড়া ক্ষেত্রে উভয় দেশের মধ্যেকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। উভয় দেশের বানিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নে আমরা কাজ করতে আগ্রহী।

উক্ত অনুষ্ঠানে OIC ও IYCF এর উর্ধতন কর্মকর্তা বৃন্দ ও সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।