বাড়িতে ডেকে স্বামীর গোপনাঙ্গ কেটে দিলেন স্ত্রী

প্রকাশিত: 4:39 PM, January 30, 2020

জাগ্রত বাংলাদেশ

সোহাগ হোসেন (২৩) নামের এক যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছেন তার স্ত্রী শারমিন আক্তার শিলা। ঝিনাইদহের মহেশপুরের এঘটনায় পুলিশ স্ত্রী শারমিন আক্তার শিলাকে আটক করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার দুপুর ২টার দিকে মহেশপুর উপজেলার জাগুসা দক্ষিণ পাড়া গ্রামে সোহাগের শ্বশুরবাড়িতে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সোহাগ হোসেনকে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় চিকিৎসকরা।

মহেশপুর থানার ওসি মোহাম্মদ মোর্শেদ হোসেন খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। পুলিশ জানায়, ভুক্তভোগী সোহাগ হোসেন একই উপজেলা যাদবপুর উত্তরপাড়া গ্রামের শফিউল্লাহ ওরফে পান্নুর ছেলে। স্থানীয়রাদের সূত্রে জানা যায়, বিয়ের পর থেকে সোহাগ-শারমিন দম্পতির মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদ লেগেই হতো। সম্প্রতি পরিবারিকভাবে বৈঠক করে বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়। এরপর ঘটনার দিন বুধবার শারমিন তার স্বামীকে তার বাপের বাড়ি জাগুসা গ্রামে ডেকে নিয়ে যান। দুপুরে সোহাগ হোসেন শুয়ে থাকাবস্থায় তার বটি দিয়ে লিঙ্গ কর্তন করেন তার স্ত্রী শারমিন আক্তার শিলা। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে মহেশপুর হাসপাতালে ভর্তি করে।

স্ত্রীর ওপর পরকীয়ার অভিযোগ এনে সোহাগ জানান, আমার স্ত্রী শারমিনের সাথে অন্য এক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। যে কারণে প্রায়ই আমার সাথে ঝড়গা করতেন। ঘটনার দিন আমাকে খবর দিলে শ্বশুরবাড়ি জাগুসা গ্রামে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে দুপুরে ঘরের মধ্যে সুযোগ বুঝে ধারালো বটি দিয়ে আমার পুরুষাঙ্গ কেটে দেয়।

এ বিষয়ে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগের ডাঃ ডোরা জানান, তার পুরুষাঙ্গের মাঝ থেকে মারাত্মক জখম হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ওসি মোহাম্মদ মোর্শেদ হোসেন খান জানান, স্ত্রী শারমিন আক্তার শিলাকে আটক করা হয়েছে। সেখান থেকে পুলিশ ধারালো বটি ও কর্তন যাওয়া পুরুষাঙ্গটি উদ্ধার করা হয়েছে।