যে পাঁচটি অঙ্গ বড় হলে মেয়েদের সবসময় সৌভাগ্যবতী ভাবা হয়…

প্রকাশিত: 7:06 PM, February 21, 2020

জাগ্রত বাংলাদেশ

নারী হল প্রকৃতি, নারীই হল সৃষ্টি। সবাই মেয়েদেরকে দেবী রুপে পুজো করে। আমাদের দেশে মেয়েদের আলাদা স্থান রয়েছে। কিন্তু বর্তমান সমাজে অনেকেই কন্যা সন্তান চায় না। বিশ্বে নারী যদি না থাকতো তাহলে কোনো দিন প্রাণের সৃষ্টি হত না। কারন, নারীর মধ্যেই রয়েছে মাতৃরূপ। নারী না থাকলে মানুষ বলে বস্তুটা বিলুপ্ত হতে যেতো।

আবার সব থেকে মজার কথা একটা ছেলের যখন বিয়ের কথা হয়, তখন সেই ছেলেটি ও তার পরিবারের লোকজন সুন্দর মেয়ে চায়। একটি মেয়েও অনেক সময় তার বংশ রক্ষার জন্য পুত্র সন্তান আশা করে। আমাদের সমাজ যতই উন্নত হোক না কেনো, কিছু কিছু মানুষের কাছে কন্যা সন্তান জন্ম নেওয়াটা অভিশাপ।

এখনও অনেক জায়গা আছে যেখানে কন্যা সন্তান জন্মালে তাদের মা’দের শাস্তি দেওয়া হয়। গৃহবধূকে অপয়া বদনাম দেওয়া হয়। যে জন্ম দেয় তাকে ঘর ছাড়া করা হয়। আবার অনেক জায়গা আছে যেখানে কন্যা সন্তান জন্মালে তাকে পুজো করা হয়।

এর মধ্যেই এমন কিছু লক্ষণ আছে যা কোন নারীর মধ্যে থাকলে তাকে সৌভাগ্যবতী বলে মনে করা হয়। মেয়েদের নির্দিষ্ট কিছু অঙ্গ বড় হলে তাকে শুভ বলে মনে করা হয়। আসুন জেনে নেওয়া যাক কি কি সেই অঙ্গ…

১. বড় চোখ – মেয়েদের চোখ বড় হলে এমনিতেই সুন্দর লাগে। এরা যে বাড়িতে বউ হয়ে যায় তারা ধন সম্পত্তির আধিকারি হয়। এরা নিজেদের স্বামিকে খুব ভালোবাসে। এই সব মেয়েদের সব কাজে আলাদা গুন থাকে।

২. লম্বা নাক – যে সব মেয়ের নাক টিকালো হয় তারা সৌভাগ্যের অধিকারী হয়। এরা সব রকম সমস্যা ঠাণ্ডা মাথায় সামাধান করে। এদের টাকা খরচ করার প্রবনতা থাকে, কিন্তু কোন বাজে খরচা করে না।

৩. লম্বা আঙ্গুল – যাদের হাতের আঙ্গুল লম্বা হয় তারা খুব বুদ্ধি নিয়ে চলে। তারা লেখাপড়াতেও খুব ভালো হয়। এই সব মেয়েরা টাকা খুব কম খরচ করে এবং সেটা জমানোর চেষ্টা করে।

৪. লম্বা চুল – যেসব মেয়েদের মাথায় লম্বা চুল থাকে তারা যে বাড়িতে যায় তাদের টাকার অভাব হয় না। মেয়েদের লম্বা চুল থাকলে তাদের পরিবারের জন্য খুব ভাগ্যবতী মনে করা হয়।

৫. লম্বা গলা – এই ধরনের মেয়েরা যে বাড়িতে যায় খুশির ভাণ্ডার নিয়ে যায়। এদের অনেক সৌভাগ্যশালী বলা হয়। এরা সব কাজে খুবই নিখুঁত প্রকৃতির হয়ে থাকে। কোন কাজ পুরোপুরি শেষ হওয়া পর্যন্ত এরা আশা ছারে না।