নাতনি হওয়ায় ছাদ থেকে ফেলে মেরে ফেললেন ঠাকুমা

প্রকাশিত: 6:59 PM, February 27, 2020

জাগ্রত বাংলাদেশ ডেস্ক:

কন্যাসন্তান হয়ে জন্মেছে নবজাতকের ‘অপরাধ’ বলতে শুধু ওইটুকুই। মা চেয়েছিলেন তার ছেলের পুত্রসন্তান হবে। কিন্তু সাতদিন আগে যখন ছেলের বউয়ের কোলজুড়ে কন্যাসন্তানের জন্ম হলো তখন তিনি খুশি হতে পারেননি। তাই ছোট্ট শিশুটিকে ছাদ থেকে ছুড়ে ফেলে খুন করেছেন তিনি।

গত শুক্রবার রাতে বেঙ্গালুরুর মেদারাল্লি এলাকায় মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে। নবজাতককে হত্যার অভিযোগে শিশুটির মা তামিলসেলভি তার শাশুড়ি পরমেশ্বরীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত পরমেশ্বরীকে ইতোমধ্যে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

নির্মমভাবে প্রাণ হারানো ওই নবজাতকের মা বলেন, শাশুড়ির কাছে মেয়েকে রেখে শৌচাগারে গিয়েছিলেন। কিন্তু সেখান থেকে ফিরে মেয়েকে দেখতে না পেয়ে তা নিয়ে শাশুড়ি প্রশ্ন করলে তিনি জানান, সে শৌচাগারে যাওয়ার পর কিছু মানুষ জোর করে বাড়িতে ঢুকে শিশুটিকে কেড়ে নিয়ে গেছে।

শাশুড়ির কথা শোনার পর মনে সন্দেহ জাগলে পুলিশকে ঘটনাটি জানান তিনি। পুলিশ এসে তল্লাশি চালিয়ে বাড়িটির পাশের একটি খোলা জায়গা থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে। নবজাতকের মাথায় মাথায় গভীর ক্ষত ছিল। বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে নাতনিকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেন পরমেশ্বরী।

পুলিশের বরাতে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বেঙ্গালুরুর একটি বেসরকারি হাসপাতালে সাতদিন আগে কন্যাশিশুর জন্ম দেন তামিলসেলভি। কিন্তু কন্যাসন্তান হওয়ায় শাশুড়ি পরমেশ্বরী চরম অসন্তুষ্ট ছিলেন। তাই শেষমেশ কন্যাশিশুটিকে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।সূত্র:কলকাতা নিউজ